ঢাকাবুধবার , ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. Games
  2. করোনাভাইরাস
  3. খেলাধুলা
  4. জাতীয়
  5. টেকনোলজি
  6. দুর্ঘটনা
  7. বিনোদন
  8. লাইফস্টাইল
  9. সফলতার গল্প
  10. সারাদেশ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ঝালকাঠিতে যুবলীগের বর্ধিত সভাকে কেন্দ্র করে উজ্জিবিত নেতা-কর্মীরা

কালের পোস্ট ডেক্স
সেপ্টেম্বর ২২, ২০২১ ৯:৫৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ad

আবু সায়েম আকন, ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠিতে জেলা আওয়ামী যুবলীগের বর্ধিত সভাকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত হতে শরু করেছে। এর মধ্য দিয়ে দীর্ঘ ৪৯ বছর পরে পূর্ণাঙ্গ জেলা কমিটি গঠনের আশার আলো দেখতে পাচ্ছেন তাঁরা।

কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিতব্য এ সভার মধ্য দিয়ে আগামী দিনের নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনের সম্ভাবনা রয়েছে বলে ধারনা রাজনৈতিক মহলের।

তাই এই বর্ধিত সভাকে ঘিরে কর্ম চাঞ্চল্য শুরু হয়েছে যুবলীগের তৃনমূলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে। সাজ সাজ রব বিরাজ করছে সবার মধ্যে।

দলীয় সুত্রে জানাগেছে, ১৯৭২ সালের ১১ নভেম্বর যুবলীগ প্রতিষ্ঠা হবার পরে আলমগীর হোসেনকে আহবায়ক ও জাহাঙ্গীর খলিফাকে যুগ্ম আহবায়ক করা হয়। ১৯৭৫ সালের পর ঝালকাঠি জেলা যুবলীগের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়।

এরপর দীর্ঘদিন কমিটি বিহীন থাকার পর ১৯৯৪ সালে এম আলম খানকে আহবায়ক এবং খসরু নোমান ও লিয়াকত আলী খানকে যুগ্ম আহবায়ক করা হয়। ১৯৯৭ সালে এম আলম খান মূল দলে চলে গেলে খসরু নোমানকে আহবায়ক এবং জাকির হোসেন ও লিয়াকত আলী খানকে যুগ্ম আহবায়ক করা হয়। এ আহবায়ক কমিটি দিয়ে ১৪ বছরেও সম্মেলন করে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা সম্ভব হয়নি।

২০১২ সালের ১৭ জুন বর্তমান আহবায়ক কমিটি গঠনের পর ৯ বছর পার করে দিলেও এ কমিটি আজ পর্যন্ত নেতা কর্মীদের পূর্ণাঙ্গ কমিটি উপহার দিতে পারেনি। সে সময় লিয়াকত আলী খানকে আহবায়ক, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম জাকির ও বর্তমান জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমানকে যুগ্ম আহবায়ক করে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় যুবলীগ।

আহবায়ক লিয়াকত আলী খান ও হাবিবুর রহমান মূল দলে চলে যাওয়ায় ২০১৯ সালে আহবায়ক কমিটি কিছুটা সংশোধন করে কেন্দ্র। এতে ৭১ সদসস্যের কমিটির অন্যদের বহাল রেখে রেজাউল করিমকে আহবায়ক ও কাউন্সিলর কামাল শরীফকে যুগ্ন আহবায়ক করা হয়।

অতীতে যে কোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে ঝালকাঠি জেলা যুবলীগ অত্যান্ত সু-সংগঠিত। দলের মধ্যে নেই কোন গ্রুপিং। কেন্দ্র ঘোষিত সকল কর্মসূচী পালিত হচ্ছে জাকজমক ভাবে।

পাশাপাশি জেলা আওয়ামী লীগসহ অন্য সহযোগি সংগঠনের কর্মসূচীতেও যুবলীগের অংশ গ্রহণ থাকে উল্লেখ করার মত। বর্তমানে ঝালকাঠি জেলা, সদর উপজেলা ও শহর যুবলীগের শীর্ষ পদ পাওয়ার জন্য প্রায় ডজন খানেক নেতা দৌঁড় ঝাপ করছেন।

প্রত্যাশীদের মধ্যে জেলা যুবলীগের সভাপতি পদে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, জেলা যুবলীগের আহবায়ক পৌর কাউন্সিলর রেজাউল করিম জাকির এবং সাধারণ সম্পাদক পদে সাবেক ছাত্রলীগনেতা, পৌর কাউন্সিলর কামাল শরীফের কোন প্রতিদ্বন্দ্বী নেই। তাঁরা দুজনেই আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য, সাবেক শিল্পমন্ত্রী আলহাজ্ব আমির হোসেন আমুর অত্যন্ত আস্থা ভাজন।

এদিকে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি পদে সাবেক ছাত্রলীগনেতা , শহর যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক মো. ছবির হোসেন আছেন এগিয়ে। তিনি ইতি মধ্যেই অনেক মানবিক কাজ করে নেতা কর্মীসহ সকলের মন জয় করেছেন। অপর পদ প্রত্যাশিরা হলেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জামাল হোসেন মিঠু, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শফিক, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আলী আসগর আকাশ, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাইনুল ইসলাম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার ইয়াদ মোর্শেদ প্রিন্স। এছারাও অনেকেই যুবলীগের পদ প্রত্যাশী রয়েছেন। এদের মধ্যে অধিকাংশই ছাত্রলীগের সাবেক নেতা। পদ প্রত্যাশীরা সকলেই রাজনীতির মাঠে সরব রয়েছেন। এবং এরা সকলেই বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাবেক চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের অন্যতম সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র আমির হোসেন আমু এমপির অনুসারী।

আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিতব্য এ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি থাকার কথা রয়েছে কেন্দ্রীয় যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম বদি, প্রধান বক্তা থাকবেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক (বরিশাল বিভাগের দায়িত্ব প্রাপ্ত) কাজী মাজাহারুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সাংবাদিক মানিক লাল ঘোষ, কেন্দ্রীয় কার্যকারি সদস্য সাইদুর রহমান জুয়েল ও তানিন তালুকদার।

এব্যাপারে সাবেক ছাত্রলীগনেতা , শহর যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক মো. ছবির হোসেন বলেন,‘ অনেক দিন পরে হলেও আমাদের এখানে যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আমরা আশা করছি এই সভার পরেই জেলা কমিটি ও বিভিন্ন ইউনিটের কমিটি করা হবে। নতুন নেতৃত্বে চাঙ্গা হয়ে উঠবে মানবিক যুবলীগ।

যুগ্ন আহবায়ক পৌর কাউন্সিলর কামাল শরীফ বলেন,‘ বর্ধিত সভাকে কেন্দ্র করে ঝালকাঠি জেলার অধিনে যুবলীগের সব কয়টি ইউনিটের নেতা-কর্মীদেরকে নিয়ে মিটিং করা হয়েছে। সেখানে আমরা ব্যাপক সাড়া পেয়েছি। আমরা আশা করছি বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মীদের উপস্থিতিতে বর্ধিত সভা সফল হবে।’

এব্যাপারে ঝালকাঠি জেলা যুবলীগের আহবায়ক পৌর কাউন্সিলর রেজাউল করিম জাকির বলেন, দীর্ঘদিন পরে কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে ঝালকাঠিতে যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আমাদের অভিভাবক জননেতা আমির হোসেন আমু এমপি মহোদয় ছিলেন যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সফল চেয়ারম্যান। আমরা তাঁর নেতৃত্বে রাজনীতি করি। আমির হোসেন আমু এমপি মহোদয়সহ কেন্দ্রীয় যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ভাই ও সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল হোসেন খান নিখিল ভাই আমাদের যে নেতৃত্ব উপহার দিবেন আমরা তাই মেনে নিব।’